মহান স্বাধীনতা দিবস আজ ২৬ মার্চ এগিয়ে যাওয়ার প্রেরণা জোগায়

0
559

আজ বাঙালি জাতির জীবনে অনন্য এক দিন । মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস আজ। বিশাল স্বপ্ন ছিল মুক্তিযুদ্ধদের ।জটিল আবর্তে ঘুরপাক খাচ্ছে মুক্তিযোদ্ধার সঠিক ও পূর্ণাঙ্গ তালিকা। স্বাধীনতার ৪৮ বছর পরও পূর্ণাঙ্গ ও নির্ভুল তালিকা প্রণয়ন করা সম্ভব হয়নি। অমুক্তিযোদ্ধাদের বাদ দিয়ে সঠিক ও নির্ভুল তালিকা তৈরির জন্য নেওয়া সর্বশেষ উদ্যোগও ভেস্তে যেতে বসেছে।

উপরন্তু নতুন প্রায় ২৭ হাজার জনের প্রস্তাব এসেছে মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে অন্তর্ভুক্তি জন্য। সংখ্যাটি অস্বাভাবিক হওয়ায় তা আবার যাচাই-বাছাইয়ের সিদ্ধান্ত নিয়েছে জাতীয় মুক্তিযোদ্ধা কাউন্সিল (জামুকা)।

স্বাধিকারের দাবিতে জেগে ওঠা নিরীহ বাঙালির ওপর একাত্তরের ২৫ মার্চ কালরাতে পাকিস্তানি হানাদার বাহিনী চালিয়েছিল নির্মম হত্যাযজ্ঞ। সেই কালরাত স্মরণে গতকাল সোমবার গণহত্যা দিবস পালন করা হয়। গত রাত ৯টা থেকে ৯টা ১ মিনিট পর্যন্ত জরুরি স্থাপনা ছাড়া সারা দেশে প্রতীকী ব্ল্যাকআউট বা আলো নিভিয়ে কালরাত স্মরণ করে জাতি। এ ছাড়া ইসলামিক ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে জাতীয় মসজিদ বায়তুল মোকাররমে কোরআনখানি, মিলাদ ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। মোনাজাত পরিচালনা করেন জাতীয় মসজিদের সিনিয়র পেশ ইমাম মুফতি মাওলানা মিজানুর রহমান।
স্বাধীনতার পর বিভিন্ন সরকারের আমলে ছয়বার তালিকা প্রণয়ন করা হয়েছে। তা সত্ত্বেও প্রকৃত মুক্তিযোদ্ধার তালিকা নিয়ে বিভিন্ন মহলে প্রশ্ন আছে। সব মিলিয়ে দেশে এখন গেজেটভুক্ত মুক্তিযোদ্ধার সংখ্যা দুই লাখ ৩৪ হাজার ৩৭৮। মাসে ১০ হাজার টাকা করে ভাতা পাচ্ছেন এক লাখ ৮৭ হাজার ৯৮২ জন। মুক্তিযোদ্ধাদের জন্য সম্মানী ভাতা এবং সন্তান, নাতি-নাতনির জন্য চাকরির কোটা নির্ধারণ, মুক্তিযোদ্ধাদের ক্ষেত্রে চাকরি থেকে অবসরের সময়সীমা এক বছর বাড়ানোর কারণে মুক্তিযোদ্ধার সনদ সংগ্রহ ও তালিকাভুক্তির জন্য হিড়িক পড়ে। এই সুযোগে অনেক অমুক্তিযোদ্ধাও মুক্তিযোদ্ধার তালিকাভুক্ত হয়েছে বলে অভিযোগ ওঠে।

২০১৭ সালের জানুয়ারিতে সারা দেশে ৪৭০টি উপজেলা/জেলা/মহানগর কমিটি গঠন করে মুক্তিযোদ্ধা যাচাই-বাছাই শুরু হয়। এতে মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে গেজেটভুক্তির জন্য ২০১৪ সালের অক্টোবর পর্যন্ত অনলাইনে এক লাখ ২৩ হাজার ১৫৪ জন এবং সরাসরি ১০ হাজার ৯০০ জন আবেদন করেন।

৩০ লাখ শহীদের আত্মত্যাগে অর্জিত স্বাধীনতাকে আরও অর্থবহ করতে দলমত-নির্বিশেষে সবাইকে মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ও গণতান্ত্রিক মূল্যবোধে উদ্বুদ্ধ হয়ে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করতে হবে।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তাঁর বাণীতে বলেছেন,আওয়ামী লীগ সরকার মহান মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় উদ্বুদ্ধ হয়ে দেশের উন্নয়নে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here